গর্ভবতী মায়েদের ডিহাইড্রেশন ও কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে ডাবের পানি

Spread the love

ডাবের পানি আমরা সাধারণত গরমেই গ্রহণ করি, কিন্তু ডাব কোন সিজনের ফল না ডাব শীত-গরমে সব সময়ই পাওয়া যায়। গরমে আমরা যখন ডাবের পানি খাই তা আমাদের দেহের অভ্যন্তরীণ তাপমাত্রা কমিয়ে শরীরকে রাখে ঠাণ্ডা। সাধারণত ডাবের পানি বাজারে পাওয়া যায় যে কোনো কোমল পানীয় থেকে অধিক পুষ্টি সমৃদ্ধ।

ডাবের পানি | coconut water

ডাবের পানিতে কি কি উপকার পাওয়া যায়ঃ

  • ডাব নিয়মিত খেলে কিডনি রোগ হয় না।
  • ডাবের পানি মাথায় খুসকির সমস্যা নিয়ন্ত্রণ করে।
  • শরীরের পানিশূণ্যতা পূরণ করে ও কাজের শক্তি যোগায়।
  • নিয়মিত ডাবের পানি পানে রক্তে চিনির মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে।
  • ডায়রিয়া বা কলেরা রোগীদের জন্য ডাবের পানি অত্যান্ত কার্যকরী।
  • ডাবের পানি হতাশা দূর করতে সাহায্য করে ও হৃদস্পন্দনকে ধীর রাখে।
  • ডাবের পানি আয়রনের ঘাটতি পূরণ করে, যা রক্ত তৈরির জন্য গুরুত্বপূর্ণ উপাদান।
  • গর্ভবতী নারীদের ডিহাইড্রেশন ও কোষ্ঠকাঠিন্য সমস্যা দূর করতে ডাবের পানি।
  • ডাবের পানি দ্রুত হজমে সহায়তা করে এবং অ্যাসিডিটি দূর করে, কমিয়ে ফেলে বুক জ্বালাপোড়া।
  • চুলের সমস্যা যেমন চুল পড়া, চুল রুক্ষ হওয়া থেকে রক্ষা করা এবং চুল চকচকে ও নরম রাখে।
  • ডাবের পানিতে খনিজ লবণ, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম ও ফসফরাস থাকে যার ফলে দাঁতের ঔজ্জ্বল্য বাড়ায়।
  • শরীরের ওজন কমাতে ডাবের পানি খুবই ভালো, এতে ফ্যাটের মাত্রা খুব কম থাকে এবং পেট ভরিয়ে রাখে অনেকক্ষণ।
  • ডাবের পানি নিয়মিত পান করলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়, বদহজম ঠিক হয়ে যায়।
  • তৈলাক্ত ত্বকের জন্য ডাবের পানি সব চাইতে বেশি উপযোগী।
  • প্রতিদিন ডাবের পানি দিয়ে মুখ ধোয়ার অভ্যাস ব্রনের সমস্যার স্থায়ী সমাধান।
  • গোসলের পানিতে মিশিয়ে নিন ডাবের পানি যা আপনার চামড়ার ইনফেকশন হতে রক্ষা করে।
  • ডাবের জলে ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেসিয়াম আছে যা হাড়ের জন্য খুবই উপকারী।
  • ব্লাড প্রেশার নিয়ন্ত্রণ করতে ডাবের জল বেশ কার্যকরী। কারণ এতে আছে ম্যাগনেসিয়াম , পটাশিয়াম ও ভিটামিন সি ব্লাড প্রেসারকে নিয়ন্ত্রণ করে। আর বিশেষত পটাশিয়াম যেটা ব্লাড প্রেসারকে বাড়তে দেয় না।

কি কি উপদান আছে ডাবের পানিতেঃ

এতে রয়েছে পটাশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, ভিটামিন সি, ক্যালসিয়াম, ডায়াবেটিস ফাইবার, নিউট্রিয়েন্টস, অ্যান্টিভাইরাল , অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল প্রপার্টি, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, মিনারেলস, পটাশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ এবং কার্বোহাইড্রেড।

কারা ডাবের পানি খাবেন না ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়াঃ

কিডনি রোগ হলে ডাবের পানি পান করা সম্পূর্ণ নিষেধ। কারণ কিডনি অকার্যকর হলে শরীরের অতিরিক্ত পটাশিয়াম দেহ থেকে বের হয় না। ফলে ডাবের পানির পটাশিয়াম ও দেহের পটাশিয়াম একত্রে কিডনি ও হৃৎপিণ্ড দুটোই অকার্যকর করে। এ অবস্থায় রোগীর মৃত্যুর কোলেও ঝুলে পড়তে পারেন। তাই যাদের দেহে প্রচুর পটাশিয়াম আছে এবং বের হয় না তাদের ডাবের পানি পান করা ঠিক না? এই সকল রুগীদের ডাবের পানি পান করানোর আগে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

ছবি ও তথ্যঃ ইন্টারনেট, গুগোল, জার্নাল পেপার, নিউজ, ব্লগ ও উইকিপিডিয়া।


লেখক ও গবেষক – প্রকৌশলী আছিব চৌধুরী

“Love yourself & you will get a way how to live” – Asive Chowdhury

# মেডিসিন থেকে দূরে থাকুন, নিয়মিত শরীর চর্চা করুন এবং সুস্থ্য থাকুন #

আপনার যে কোন মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ দিতে পারেন। পরবর্তীতে কি বিষয় নিয়ে লেখা চান সেটিও জানাতে পারেন ইমেইলের মাধ্যমে (asive.me@gmail.com)

My Research Publication in International Journal | About Asive Chowdhury Learn with Asive | Facebook | Twitter | LinkedIn | Instagram | Blog Spot YouTube | BudgerigarsWiki

I am a Google Local Guide | Wikipedia | Asive’s Blog

I am in Flicker | I am in Google Maps | I am in wikipedia Commons |I am a Designer | I am in Google Site

Email: asive.me@gmail.com, Web: asive.me