সময় এখন অটোম্যাটিক মেশিনের ! – সুয়েটার শিল্প

 

গার্মেন্টস সেক্টরে সময় এখন অটোমেটিক মেশিনের ! বেশ কিছুদিনের গবেষণায় আমি উপলব্দি করেছি আমাদের দেশের বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে এখনও ল্যাবে মেনুয়্যাল মেশিন নিয়েই ছাত্র-ছাত্রীদের কাজ দেখানো হয়/পড়ানো হয় ! যা গ্রাজুয়েশন শেষে ক্যারিয়ারের ক্ষেত্রে মারাত্মক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়, দেশের সবচেয়ে বড় মেশিনারী মেলায় (ঢাকা টেক্সটাইল গার্মেন্টস মেশিনারী মেলা – ২০১৮) না গেলে আসলে বুঝা মুশকিল বিশ্ব কোথায় আর আমরা কোথায়?

যেখানে ১১০০ টি মেশিনারী কোম্পানি ও ৩৬ টি দেশের উদ্ভাবকরা এক ছাদের নিচে একত্রিত হয়েছিলেন ০৪ দিন ব্যাপী, টেক্সটাইল ইন্ড্রাস্টিকে যদি টেকনোলজির সাথে এগিয়ে নেওয়া যায় এবং এই সেক্টরে গ্রাজুয়েটেড ছেলে মেয়েরা এগিয়ে আসে তাহলে স্বাধীনতার পর ৩টি সেক্টরের (ব্যাংকিং / গার্মেন্টস/ প্রবাসী) ১টি ব্যাংকিং সেক্টরের মত টেক্সটাইলেও ব্যাপক পরিবর্তন চলে আসবে, বিশাল একটা সম্ভাবনাময় সেক্টরে কিছুটা হলে বেকারত্বের হার হ্রাস পাবে বলে আমার বিশ্বাস…..

যদি লক্ষ করি তাহলে ৯৫% মেশিনারিজ চায়না আবিস্কার করেছে, আমরা এই মুহূর্তে মেন্যুফেকচার নিয়ে ভাবলে সময় নস্ট হবে, জানতে হবে টেকনোলজি ও তাঁর উপযুক্ত ব্যবহার। তবে শুধু এই সেক্টরে আসলেই হবে নাহ, টেকনোলজি নিয়ে জানার আগ্রহ থাকতে হবে কারন মেন্যুয়েল থেকে যখন সব অটোমেটেড হয়ে যাচ্ছে সেখানে আইসিটির ছাত্র-ছাত্রীদের বিশাল সম্ভাবনার দ্বার খুলছে !

সময় টিভির প্রতিবেদনে আমি ১টা পয়েন্ট বলেছি কেন আমরা এখন অটোমেটেড যুগে যাচ্ছি সুয়েটার ইন্ড্রাস্ট্রিতে, আর কেন এখানে “ইন্ড্রাস্টি-একাডেমী” একত্রে কাজ করা উচিৎ, ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের টেক্সটাইল বিভাগের একজন ছাত্রীও জানালো তাঁর ভাবনা ! ধন্যবাদ সময় টিভি কে এবং প্রতিবেদক সাফায়েত ভাই ও ক্যামেরা ম্যান পাভেল ভাইকে। ইতিমধ্যে গোশেং বিডি লিমিটেড ও ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি এই ব্যাপারে একত্রে কাজ করার ও উদ্যোগ নিয়েছে

 

আপনার যে কোন মতামত ও পরামর্শ দিতে পারেন। পরবর্তীতে কি বিষয় নিয়ে লেখা চান সেটিও জানাতে পারেন।

Asive Chowdhury | Facebook | Twitter | LinkedIn | Google Site | Google Local Guides | Google Plus | YouTube

Email: ac.papon@gmail.com, Website: www.asive.me