প্রথম মিটাপ “০৬০৮ উদ্যোক্তা আড্ডা”

স্লোগানঃ “০৬০৮ চাকরি খুঁজবে না, চাকরি দিবে”

ভুমিকা ও আমাদের উদ্দেশ্যঃ
“০৬০৮ উদ্যোক্তা হাব” এর মূল্য উদ্দেশ্য যদি এক কথায় বলি ০৬০৮ বেকার বন্ধুদের উদ্যোক্তা হতে সহায়তা করা এবং নিজেদের জানা গুলো একে অন্যের কাছে শেয়ারিং এর মাধ্যমে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়া। “যদি পারি অন্যকে সাহায্য করি, অন্যের বেকারত্ব নিয়ে ঠাট্টা না করি” এটাই আমাদের অন্যতম স্লোগান। বেকারত্ব সমাজের অনেক বড় একটি অভিশাপ, যে/যারা এই অবস্থানে আছে কেবল তারাই অনুভব করতে পারছে কি কঠিন পৃথিবী।

কেন না আমাদের গ্রুপে অনেকেই ভালো ভালো অবস্থানে আছে চাকরি ক্ষেত্রে, আবার অনেকেই উদ্যোক্তা যুদ্ধে নেমে গিয়েছেন অর্থাৎ পথ ঘুরিয়ে নিয়েছেন নিজের মত করে, আবার অনেকেই স্বপ্ন দেখছেন কিছু একটা করবেন, কি করবেন, কিভাবে করবেন, কোন দিক থেকে শুরু করবেন নানা কিছু পিছিয়ে দিয়েছে বা এগোতে দিচ্ছে না। মূলত এই সমস্যা গুলো একটা বড় সমাধান হচ্ছে নিজেদের কে জানা, নিজেদের উদ্যোগ সম্পর্কে জানা, নিজেদের মধ্যে হেল্পিং মাইন্ড তৈরি করা, নিজে যা জানি অন্যের সাথে শেয়ার করা, অন্যের গল্প গুলো শুনা ও জানা আর সে জন্য দরকার একটি হাব আর সে ভাবনা থেকেই জন্ম “০৬০৮ উদ্যোক্তা হাব”।

উদ্যোক্তা গণ নিজেদের উদ্যোগ জীবনের কঠিন ও বাস্তবতা গুলো শেয়ার করলে, নতুনদের জন্য কিছুটা হলেও সহজ হয়ে যাবে এই পথ, যদিও উদ্যোক্তা জীবন কখনও সহজ না এমনকি চাকরি জীবনও সহজ নয়। কোন কাজই সহজ নয়, দরকার সঠিক জানা ও দিক নির্দেশনা। অণ্যদিকে সবাই উদ্যোক্তা হবে না, সবাই চাকরি করবে না। তবে সমাজের গতানুগতিক নিয়মে বেশির ভাগই চাকরি করবে বা চাকরি খুঁজবে তাহলে একজন উদ্যোক্তা যদি সফল ভাবে উদ্যোগ রান করতে পারে তাহলে চাকরির / কর্মসংস্থানের ব্যবস্থাও হয়ে যাবে। দুই দিকেই সম্ভাবনা আছে, আবার কেও কেও চাকরির পাশাপাশিও উদ্যোগ নিতে চায় বা উদ্যোক্তা হতে চায় সেইও পারবে। আবার কেও কেও চাকরি নামক সোনার হরিনের পেছনে সময় না দিয়ে নিজেই উদ্যোক্তা হতে চায়। অর্থাৎ সবার জন্যই এই প্ল্যাটফর্ম “০৬০৮ উদ্যোক্তা হাব” এখানে নেই কোন রাজনীতি, নেই কোন ইকুনমিক সুবিধা, নেই কোন ব্যবসা তবে হ্যাঁ আছে সম্ভাবনা, আছে সুযোগ, আছে আলোচনার দুয়ার, আছে পরিকল্পনা, আছে উদ্যোক্তা জীবন যুদ্ধ, আছে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা, আছে হেল্প করার মন মানসিকতা, আছে ট্রেনিং বা স্কিল শেয়ারিং এর ব্যবস্থা, আছে উদ্যোক্তা তৈরির কলাকৌশল, আছে নিজেদের মধ্যে শক্ত নেটয়ার্ক ও সেতু বন্ধন তৈরি করার ব্রিজ আছে ক্রেতা / বিক্রেতা / ইনভেস্টরের সমাগম।

আমরা কেও একা এগিয়ে যেতে পারবো না, আমাদের এক হয়ে কাজ করতে হবে তাহলেই একটা উদ্যোগ সফলতার মুখ দেখতে পাবে আবার এই কাজে সবাইকে পাওয়াও যাবে না, সবাই “নিজের খেয়ে বনের মোষ তাড়াবে না” এটাও মাথায় রাখতে হবে। সবাই উদ্যোক্তা হবে না, সবাই চাকরি করবে না, সবাই কে জোর করে উদ্যোক্তা বানানো যাবে না, এমনকি সবাইকে আড্ডায়ও পাওয়া যাবে না। গুটি কয়েক পাগল দিয়েই যে কোন কমিউনিটি বেড়ে উঠে যদি বলি অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ স্যার এর মতে, “পাগল ছাড়া দুনিয়া চলে না” হা গুটি কয়েক পাগল দিয়েই উদ্যোগ এগিয়ে যাবে। আমরা একে অন্যের পাশে দাড়ালে আশা করছি অনেকেই অনেকের অবস্থান থেকে উঠে আসতে পারবে, যেমনটি জীবনানন্দ দাশ বলেছেন, “যদি থাকে বন্ধুর মন, গাং পাড় হইতে কতক্ষণ” আসলেই বন্ধুত্বের হাত, বন্ধুত্বের সেতু বন্ধন এবং বন্ধুর পরামর্শ অনেক কঠিন কাজ সহজ করে দিবে বলে আমার বিশ্বাস।

আবার মুনির হাসান স্যার বলেছেন “পথে নামলেই পথ চেনা যায়” এবং “পথিক পথ ঘুরাও নিজের পথে” হ্যাঁ অনেক পথের গল্প বইতে বা টিভিতে দেখে বা উপন্যাস এ পড়ে সমাধান সম্ভব নয়, সেই জন্য পথে নেমে যেতে হবে, পথে নামলেই অনেক সমস্যা আসবে আবার সে গুলো সমাধানও হয়ে যাবে। সব শেষে একটি ফেমাস উক্তি আছে জিগ জিগলারের “স্টপ সেলিং, স্টার্ট হেল্পিং” এটি আমাদের মনে প্রানে ধারন করতে হবে তাহলেই কাজ গুলো বা উদ্যোগ গুলো এগিয়ে নেওয়া সম্ভব, শুরুতেই যদি আমরা হাব থেকে বিজনেস খুঁজে বসি তাহলে উদ্যোগ বা হাব চলমান রাখা কঠিন হয়ে যাবে। দিন শেষে হতাশা দূরে রেখে নিজের ইচ্ছা শক্তিকে প্রাধান্য দিয়ে নিজের ভালো লাগার কাজটি নিয়ে এগিয়ে গেলে আর লেগে থাকলে সফলতা ধরা দিবেই ইনশাল্লাহ।

আর যে যেই অবস্থান থেকে যে কাজটি করছি না কেন, দিন শেষে হিসাব করে দেখছি কিনা আমি আমার জায়গায় সেটিস্ফাইড কিনা, আমি আমার জায়গায় সুখী কিনা, আমি নিজে যদি সুখী না হই অন্যকে অনুপ্রেরণা দেওয়া কঠিন হয়ে যাবে। তাই সব কিছুর ভিড়েও নিজেকে সময় দিতে হবে, পরিবারকে সময় দিতে হবে, অন্যের সহযোগিতায় এগিয়ে আসতে হবে, নিজের ভালো লাগা গুলোকে শ্রদ্ধা করতে হবে, অন্যকে ভালবাসতে হবে এবং শ্রদ্ধা করতে হবে, নিজেকে শুনতে হবে।

এই তো…বরাবরই গ্রুপের সম্মানিত এডমিন / মডারেটর প্যানেল আমাদের সহযোগিতা করে এসেছে এমন উদ্যোগ গুলোকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য, একই সাথে আমরা চাই আমাদের এমন উদ্যোগকে চলমান রাখার জন্য এডমিন/মডারেটর প্যানেল সব সময় আমাদের সহযোগিতা করবে, তাদের প্রতি রইল শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা, কেন না দিন শেষে আমরা একসাথেই কাজ করবো, পরিশেষে আন্তরিক ধন্যবাদ ০৬০৮ গ্রুপ ক্রিয়েটর এডমিন নোমান রাসেলকে স্বপ্ন দেখতে সহযোগিতা করার জন্য, শুরু থেকেই এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানানো ও চলমান করার লক্ষে অনুপ্রেরণা দেওয়ার জন্য।

গতকাল আমাদের প্রথম মিটাপ “০৬০৮ উদ্যোক্তা আড্ডা” অনুষ্ঠিত হয়েছে মাসুমের অফিসে বাড্ডা লিংক রোডে এবং এটা চলমান থাকবে, সামনের আড্ডা ফটোগ্রাফার বন্ধু আবু সুফিয়ান নিলাভ এর অফিসে তারপর আমি নীল এর অফিসে সহ অন্যান্য স্থানে ও জেলা ভিত্তিকও হবে, আশা করছি আরও অনেক বন্ধু (উদ্যোক্তা রিলেটেড) আমাদের মিটাপে জয়েন করবে, শেয়ার করবে নিজেদের জানা ও অজানা, সবশেষে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা সকলের প্রতি।


লেখক ও গবেষক – প্রকৌশলী আছিব চৌধুরী

“Love yourself & you will get a way how to live” – Asive Chowdhury

# মেডিসিন থেকে দূরে থাকুন, নিয়মিত শরীর চর্চা করুন এবং সুস্থ্য থাকুন #

আপনার যে কোন মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ দিতে পারেন। পরবর্তীতে কি বিষয় নিয়ে লেখা চান সেটিও জানাতে পারেন ইমেইলের মাধ্যমে (asive.me@gmail.com)

My Research Publication in International Journal | About Asive Chowdhury Learn with Asive | Facebook | Twitter | LinkedIn | Instagram | Blog Spot YouTube | BudgerigarsWiki

I am a Google Local Guide | Wikipedia | Asive’s Blog

I am in Flicker | I am in Google Maps | I am in wikipedia Commons |I am a Designer | I am in Google Site

Email: asive.me@gmail.com, Web: asive.me