করোনার জব মার্কেট পরিস্থিতি ও পরবর্তী ভাবনা

করোনা ভাইরাস এর কঠিন পরিস্থিতি হয়তো আমরা মোকাবেলা করতে পারবো বাসায় থেকে, নিরাপদ থেকে ও সচেতন থেকে কিন্তু তার পরবর্তী ভাবনা কি ভেবেছি আমরা? করোনা পরবর্তী অবস্থা ? হ্যাঁ বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দা যখন আসবে তার বাহিরে আমরাও থাকবো না, এটা শিউর ! আর হ্যাঁ এর মধ্যেই কিছুটা আঁচ এখনই পাওয়া যাচ্ছে, আর কিছু দিন পর আরও পরিস্কার ভাবেই বুঝতে পারবো আমরা সবাই কি হতে যাচ্ছে সামনের দিন গুলোতে।

প্রায় সমগ্র বিশ্ববাসী ঘরবন্দি, কল-কারাখানা, শিল্প-কর্ম সহ সবই এই মুহূর্তে বন্ধ, কোথাও কেও নেই, জীবনের ভয়ে এবং সামাজিক দুরুত্ব বজায় ও সচেতনতা, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এবং বিভিন্ন দেশের সরকার প্রধান ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ ক্রমে সকলেই নিজ নিজ বাসায় অবস্থান করছেন, সবাই হয়তো এটাই আশা করে আছি কিছু দিন পর এর ভয়াবহতা কমে আসবে ধীরে ধীরে, আর হ্যাঁ এর মধ্যেই আরেক বার্তা তা অর্থনৈতিক চাকা অচল হওয়ার শুরু, জ্বি হ্যাঁ সত্যি তাই, উন্নত বিশ্ব গুলো জীবন-মরন যুদ্ধ করে কুল কিনারা পাচ্ছে না, ইতিমধ্যে দেখেছি বিভিন্ন মিডিয়ার মাধ্যমে সারা বিশ্বে প্রায় দেড় লাখের বেশি মানুষকে নিয়ে গেছে করোনা ভাইরাস তাঁর ভয়াবহ থাবায়। আরও কত জন বিদায় হবে আমরা কেও বলতে পারছি না।

কেন না এখনও কোন প্রতিষেধক আবিস্কৃত হয়নি, কবে নাগাদ হবে এখনও বলা যাচ্ছে না স্পষ্ট করে, তবে বিশ্বের বড় বড় জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও বিজ্ঞানীগণ নানান বড় ল্যাব এর প্রচেষ্টায় চেষ্টা করে যাচ্ছেন দিনে দিনে প্রতিষেধক তৈরির লক্ষে, এর মধ্যে ধনী রাষ্ট্র গুলো তাদের জনগণের পারিবারিক, সামাজিক ও অর্থনৈতিক সকল চাহিদা পূরণে চেষ্টা করে যাচ্ছে, ঠিক একই ভাবে চিন্তা করলে আমরা এখনও অত উন্নত রাষ্ট্র নয়, আমরা কেবল মধ্যম আয়ের উন্নত যাওয়ার পথে ছিলাম, মানে এখনও দরিদ্র কাতারেই আছি, আসলে আয়তনের তুলনায় জনসংখ্যা ও চাহিদা বেশি ও আরও নানান কারন, তারপরও আমাদের সরকার প্রধান ও বেসরকারি নানান প্রতিষ্ঠান নিজেদের জায়গা থেকে এগিয়ে এসেছেন নানান দিক দিয়ে, সত্যি বলতে কি আসলে তা পর্যাপ্ত নয়, এটা আমাদের স্বীকার করেই নিতে হবে, তাই অন্যদের মানে অন্যান্য দেশের কথা ও কাজ না ভেবে নিজেদের দিকে নিজেদের খেয়াল করার সময় এসেছে, একই সাথে বলবো আমাদের সাথে বিশ্বের অন্যান্য দেশের কাজ ও চিন্তা ভাবনা বাস্তবিক না অনেকটা কাল্পনিকই বটে।

যদি সাম্প্রতিক বাজার বিশ্লেষণ করি আমাদের দেশের, কি চিত্র দেখা যাচ্ছে চলুন দেখি, দেশের অন্যতম ইউনিক ইকমার্স প্রতিষ্ঠান ডেলিগ্রাম নিজেদের অপারেশন ছোট করে ফেলেছে এবং অনেক কর্মী ছাটাই করেছে ইতিমধ্যে, পারফি অনলাইন শপিং কিছু নতুন নীতিমালা প্রণয়ন করেছে এর মধ্যে একটা বড় নীতি হচ্ছে বেতন কাঠামো ছোট করে ফেলেছে ও কর্মী ছাটাই করেছে, প্রাইম অ্যাাসেট ল্যান্ড নামক গ্রুপ অফ কোম্পানি মুঠোফোনে এসএমএস এর মাধ্যমে চাকরীচ্যুত করেছেন একটা বড় অংশকে, শিউর ক্যাশ এর মতন বড় প্রতিষ্ঠান ২০০ প্লাস কর্মী ছাটাই করেছে ইতিমধ্যে, ইকমার্স প্রিয়শপ, ইভ্যালি সহ আরও অনেক গুলো ইকমার্স এখন শুধু মাত্র গ্রোসারি নিয়ে কাজ শুরু করেছে সার্ভাইব করার জন্য, গোয়ালা তাদের মেইন পন্য এর সাথে গ্রোসারি নিয়ে ভাবছে আর বিকল্প নেই এখন, ফ্রীল্যান্স মার্কেটে অনেকের সাথে লং টার্ম ক্লাইন্ট প্রকল্প বন্ধ করে দিচ্ছে ক্লাইন্ট কারন দেশের ও নিজেদের অবস্থা ভালো নয়, বিশ্বের সবচেয়ে বড় ইকমার্স জায়ান্ট অ্যামাজন তাদের এফিলিয়েট প্রোগ্রামে কমিশন অংশ কমিয়ে দিয়েছে এবং কর্মী ছাটাই করেছেন, ইকমার্স বাজারনং১ তাদের অপারেশন পুরোপুরি বন্ধ রেখেছে একই সাথে আরও কিছু বাজে খবর হয়তো আসছে, ব্যবসায়িকদের মতে এভাবে লকডাউন বা পরিস্থিতি চলতে থাকলে কর্মী ছাটাই ও বিজনেস ছোট করে ফেলা এমনকি বিজনেস বন্ধ করে দেওয়া ছাড়া কোন উপায় থাকবে না।

পরবর্তী ভাবনা ও কি করনীয়ঃ

  • জমানো টাকা বা সম্পদ হুট করেই খরচ করা শুরু করবেন না।
  • খাবার সঞ্চয় করুন, পরিবারের সাথে বলুন, সমস্যা নিজের মধ্যে রেখে দিবেন না।
  • অযথা কেনাকাটা বা খরচ থেকে বিরত থাকুন, পরিমিত খাবার খান, অভ্যাস করুন।
  • গ্রামে পুকুর বা জমি থাকলে সমন্বিত খামার পরিকল্পনা গ্রহণ করুন এখনই।
  • ধার দেওয়া ও নেওয়া থেকে আপাতত বিরত থাকুন, দেনা থাকলে দিয়ে দিন।
  • বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে মাছ চাষ ও সবজি করার প্লান করুন, আগে পরিবারের খাবারের চাহিদা মেটান।
  • খামার করার আগে নিজে জানুন, না জেনে পা দিবেন না, পড়া শুনা করে নিন গুগোল/ইউটিউবে।
  • ঢাকার বাসার বারান্দায় এবং ছাদে সবজি করুন, লেবু ও নিম গাছ লাগান, শাক করুন নিজেদের জন্য।
  • মনে রাখবেন কাজে লজ্জার কিছু নাই, লোকে কি বলবে এই ভেবে নিজেকে বিপদে ফেলবেন না।
  • সিভি কারেকশন করুন এবং নিয়মিত আপডেট করুন, বিডি জবস ডু মারুন নিয়মিত।
  • নিজের অভিজ্ঞতা গুলো নিজের ওয়েব সাইটে বা অন্যান্য জায়গায় আপডেট করে রাখুন।
  • প্যাসিভ ইনকাম নিয়ে ভাবুন, হোম কোয়ারাইন্টাইন দিন গুলো শেখার কাজে ব্যয় করুন।
  • নতুন কিছু শিখুন, পুরাতন জানা গুলো জালাই করুন, আগের কোন বাগ/এরর থাকলে শিখে নিন।
  • মেন্টর খুজে নিন, সাহায্য চান, নিজে গুগোল করুন, ইউটিউভ দেখুন, শিখুন, শিখুন এবং শিখুন।
  • ছোট ছোট উদ্যোগ নিয়ে ভাবুন, চাকরির পেছনে পড়ে থাকবেন না, এখন অনেক কিছুই চেইঞ্জ।
  • ইকমার্স নিয়েও ভাবতে পারেন তবে পন্য সোর্স নিজে তৈরি করলে বাড়টি সুবিধা, ভাবতে হবে।
  • ছোট ছোট করে আর্নিং সোর্স খুঁজে বের করুন, অন্যকে সঠিক তথ্য দিয়ে হেল্প করুন, নিজেকে শুনুন।
  • নিজের বিশ্বাস করুন, ১৯৭১ এর পর বাংলাদেশ ঘুরে দাড়িয়েছে, ২০২০ পর আবারও ঘুড়ে দাঁড়াবে।
  • চেষ্টা করুন, আল্লাহ্‌র কাছে প্রার্থনা করুন যাতে সমগ্র মানব জাতি এ মহামারি থেকে রক্ষা পায়।

ধন্যবাদ, আজ এই পর্যন্ত, আবারও কথা হবে, ভালো থাকবেন আর ভালো রাখবেন।


লেখক ও গবেষক – প্রকৌশলী আছিব চৌধুরী

“Love yourself & you will get a way how to live” – Asive Chowdhury

# মেডিসিন থেকে দূরে থাকুন, নিয়মিত শরীর চর্চা করুন এবং সুস্থ্য থাকুন #

আপনার যে কোন মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ দিতে পারেন। পরবর্তীতে কি বিষয় নিয়ে লেখা চান সেটিও জানাতে পারেন ইমেইলের মাধ্যমে (asive.me@gmail.com)

My Research Publication in International Journal | About Asive Chowdhury Learn with Asive | Facebook | Twitter | LinkedIn | Instagram | Blog Spot YouTube | BudgerigarsWiki

I am a Google Local Guide | Wikipedia | Asive’s Blog

I am in Flicker | I am in Google Maps | I am in wikipedia Commons |I am a Designer | I am in Google Site

Email: asive.me@gmail.com, Web: asive.me