ঝড়-বৃষ্টির দিনে কি কি সাবধানতা অবলম্বন করবেন

ঝড় বৃষ্টির দিনে কিছু জিনিস অনুসরণ করবেন, কম বেশি আমরা সবাই জানি, কিন্তু অলসতা বা জানি বলে এই রকম ছোট ছোট বিষয়ে আমরা মাঝে মধ্যে গুরুত্ব দেই না, একটু খেয়াল করে অনুসরণ করলে হয়তো আমরা আরও সচেতন হতে পারবো। চলুন জেনে নেই কি করবো আর কি করবো নাঃ

বাসার বারান্দায় পাখির খাঁচাঃ

যারা শখের বসে বাসায় পাখি লালন পালন করেন এবং পাখির খাঁচাটি বারান্দায় রেখেছেন বা সেট আপ করেছেন এই সময়ে বাসার ভেতরে যে কোন রুমে নিয়ে আসুন, যতই আপনি কাপড় বা অন্যান্য জিনিস দিয়ে পাখির খাঁচা ডেকে দিন না কেন, এমন জড়ো বাতাসে আর বৃষ্টিতে ঠাণ্ডা লেগে যাওয়া ও ভয় পাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি, এতে করে পাখির ক্ষতি হতে পারে।

বারান্দায় বাগানঃ

যারা গাছ পালা ভালোবাসেন এবং যে/যারা বাসার বারান্দায় বাগান করেছেন, বাগানের ছোট ছোট গাছ গুলো শক্ত লাঠির সাথে বেঁধে দিন, বাতাস লাগে কম এমন স্থানে সরিয়ে দিন ছোট ছোট গাছ ও টব গুলো, জড়ো হাওয়ায় খুব কঠিন হয়ে যাবে ওদের টিকে থাকা, গাছের গোঁড়া নরম হয়ে যেতে পারে বা গাছের শাখা বা বডি ভেঙ্গে যেতে পারে।

বাসার দরজা ও জানালাঃ

রুমের জানালা গুলো বন্ধ করে দিন খুব দ্রুত, একই সাথে থাই গ্লাস সম্পৃক্ত জানালা হলে লক করতে ভুলবেন না, কারন অতিরিক্ত বাতাসে গ্লাস ড্যামেজ হতে পারে এবং দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

টিভি ও ফ্রিজ এবং রাইটারঃ

সবার বাসাই মুটামুটি এই জিনিস গুলো কমন, আমরা কমন ভুল করে বসি, যখন মেঘ ডাকে, বিদ্যুৎ চমকায় এবং ঝড় শুরু হয় আমরা টিভি দেখতে থাকি বা ইন্টারনেট চালু থাকে একই সাথে বাসার ফ্রীজও রানিং থাকে, এটি করবেন না, এমন পরিস্থিতির সাথে সাথে টিভির প্লাগ খুলে ফেলুন, ফ্রীজ বন্ধ করে দিন, রাউটার লাইন খুলে ফেলুন, এই রকম পরিস্তিতিতে টিভি/ ফ্রীজ/ রাউটার খুব বেশি নষ্ট হয়।

চুলা বন্ধ রাখুনঃ

এই রকম পরিস্থিতিতে রান্না বান্না বন্ধ রাখবেন বা চুলা জ্বালানো রাখবেন না, কেন না বাতাসের গতি এমন থাকে যে আপনার চুলার আগুন যে কোন ভাবে ছড়িয়ে পড়তে পারে, এই ব্যাপারে খুবই সাবধানে থাকবেন এবং পরিবারের অন্যান্যদের সাবধান করবেন।

বারান্দায় বা ছাদে যাওয়া নিষেধঃ

অনুগ্রহ এই সময়ে আবেগী বা ইমোশনাল হয়ে বারান্দায় যাবেন না এবং ছাদে বা বাহিরে বৃষ্টিতে ভিজতে যাবেন না। এক হচ্ছে ঠাণ্ডা লেগে যাওয়ার সম্ভাবনা একই সাথে বিজলী চমকানো বা শখ খাওয়ার সম্ভাবনা থাকে, লোহা বা তামা জাতীয় জিনিস থেকে একটু দূরে থাকবেন।

ফোন কথা বলাঃ

এমন পরিস্থিতিতে মোবাইলে কথা বলা থেকে বিরত থাকবেন একই সাথে মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকবেন। মোবাইলে চার্জ রাখুন কারন এমন পরিস্থিতিতে কারেন্ট বা ইন্টারনেট লাইন লং টাইমের জন্য ডিসকানেক্ট হতে পারে।

জরুরী যে জিনিস গুলো করবেনঃ

  • মোবাইল ফোন চার্জ করে রাখুন
  • পাওয়ার ব্যাংক চার্জ করে রাখুন
  • বাসার আইপিএস চার্জ করে রাখুন
  • ল্যাপটপে পর্যাপ্ত চার্জ করে রাখুন
  • চার্জার লাইটে চার্জ দিয়ে রাখুন, সহজ জায়গায় রাখুন
  • মোমবাতি ও দিয়াশেলাই কাছাকাছি রাখুন, সহজ জায়গায় রাখুন
  • বাথরুমে বালটিতে পানি ভোরে রাখুন, খাবার পানি সংরক্ষণ করে রাখুন
  • বাসায় সব সময় কিছু শুকনা খাবার রাখুন

জরুরী ফোন নাম্বার যেমন, পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস, এ্যাম্বুলেন্স এবং হাঁসপাতাল ইমার্জেন্সি কন্টাক্ট নাম্বার গুলো রেখে দিন যা যে কোন সময় জরুরী ভাবে কাজে লাগতে পারে। পরিশেষে নামাজের বিছানায় গিয়ে আল্লাহ্‌র কাছে দোয়া করুন, আল্লাহ্ সকল সমস্যা সমাধান করে দিবেন যে কোন মুহুর্তে।


লেখক ও গবেষক – প্রকৌশলী আছিব চৌধুরী

“Love yourself & you will get a way how to live” – Asive Chowdhury

# মেডিসিন থেকে দূরে থাকুন, নিয়মিত শরীর চর্চা করুন এবং সুস্থ্য থাকুন #

আপনার যে কোন মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ দিতে পারেন। পরবর্তীতে কি বিষয় নিয়ে লেখা চান সেটিও জানাতে পারেন ইমেইলের মাধ্যমে (asive.me@gmail.com)

My Research Publication in International Journal | About Asive Chowdhury Learn with Asive | Facebook | Twitter | LinkedIn | Instagram | Blog Spot YouTube | BudgerigarsWiki

I am a Google Local Guide | Wikipedia | Asive’s Blog

I am in Flicker | I am in Google Maps | I am in wikipedia Commons |I am a Designer | I am in Google Site

Email: asive.me@gmail.com, Web: asive.me