গুগোল ম্যাপে আমার তোলা ৪,৫০০+ ফটো


আমি একজন গুগোল লোকাল গাইড, আমার লেভেল – ০৮ 

  • ফটো আপলোড করেছিঃ ৪,৫৭৩ টি
  • আমার ছবি দেখেছে এই পর্যন্তঃ ৫,৫৫৪,৯৯৮ জন
  • আমি রিভিউ দিয়েছিঃ ৩২৫ টি
  • লোকাল গাইডে আমার পয়েন্টঃ ২৮,৮৬৩
  • আমি প্রশ্ন উত্তর দিয়েছিঃ ১,৮৫৯ টি
  • আমি ভিডিও আপ করেছিঃ ২৩ টি

লোকাল গাইডস কানেক্টে আমার প্রোফাইলঃ এই পর্যন্ত আমি ব্লগ পোস্ট করেছি – ১৬ টি

গুগল লোকাল গাইডস কিঃ গুগল লোকাল গাইডস গুগলের একটি নতুন পরিসেবা। যার মূল উদ্দেশ্য হলো বিভিন্ন স্থানের ছবি শেয়ার করা, স্থানীয় বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেয়া, গুগল ম্যাপে কোন নতুন বা পুরাতন স্থান যোগ করা বা হালনাগাদ করা। এছাড়াও গুগল ম্যাপে পর্যটকরা যেসব দর্শনীয় স্থান যেমন রেস্টুরেন্ট, ঐতিহাসিক স্থাপনা, হোটেল, ইউনিভার্সিটি, হাসপাতাল, দর্শনীয় স্থান ইত্যাদি ঐতিহাসিক নিদর্শনগুলোতে ঘুরতে যায় সেসব যায়গার ছবি, লোকেশন এড করা, রিভিও ও রেটিং দেয়া, যা থেকে একজন পর্যটক খুব সহজে সেই জায়গার ছবি, রিভিউ সহ একটি ভালো ধারণা পেয়ে যায়। মূলত এটি একটি স্বেচ্ছাসেবী কার্যক্রম। 

লোকাল গাইডস হতে কি কি লাগেঃ আপনার একটি জিমেইল আইডি লাগবে, আপনি বয়স অবশ্যই ১৮ বছর এর উপর হতে হবে, আপনার একটি ইন্টারনেট সংযোগ লাগবে, একটি কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ না হলে একটি স্মার্ট ফোনই যথেষ্ট এবং আপনার স্বেচ্ছাসেবী মনোভাব থাকতে হবে। 

রিভিও ও রেটিং করাঃ মনে রাখবেন আপনার রিভিও ও রেটিং এর উপর ভিত্তি করে একজন দেশী / বিদেশী পর্যটক হোটেল / রেস্ট্রুরেন্ট এ যাবে, তাহলে আপনার রিভিও হতে হবে সচ্চ্য এবং রেটিং হতে হবে আপনার নিজের ভালো লাগা ও খারাপ লাগার উপর নিরভর করে। অর্থাৎ খেয়াল রাখবেন আপনি যে পণ্য বা সেবার রিভিও করছেন তা যে সত্য, সুন্দর গোছানো, সুষ্ঠু ও সুষম হয়। 

খুব সহজে যদি বলি লোকাল গাইড গণ দেশের প্রতিটি বিষয়-বস্তুর ভাল-মন্দ দিক তুলে ধরে সারা বিশ্বের কাছে যা আমাদের দেশে আগত বিদেশী পর্যটক ও দেশীয় পর্যটকদের জন্য একটি ভালো উদ্যোগ। এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আমাদের দেশের দর্শনীয় স্থান, হোটেল, খাবার রেস্টুরেন্ট, খাবারের মান, ঐতিহাসিক স্থাপনা সহ ইত্যাদি নানান বিষয়াদি সহজে জানতে পারে। 

বাংলাদেশ লোকাল গাইডসঃ বাংলাদেশে গুগল লোকাল গাইডসের সবচেয়ে বড় আনঅফিসিয়ালি কমিউনিটি হচ্ছে বাংলাদেশ লোকাল গাইডস। এছাড়াও ময়মনসিংহ লোকাল গাইডস, সিলেট লোকাল গাইডস, নরসিংদী লোকাল গাইডস, গাজীপুর লোকাল গাইডস, ঢাকা লোকাল গাইড সহ আরও বেশ কয়েকটি লোকাল গাইডস কমিউনিটি চালু আছে, আপনি চাইলে যে কোনো কমিউনিটিতে যোগ দিয়ে এই কার্যক্রমে অংশ নিতে পারেন।

গুগল লোকাল গাইড এর প্রয়োজনীয়তা কেনঃ আমরা সাধারণত সোশ্যাল মিডিয়া যেমন ফেইসবুক, টুইটার বা অন্যান্য মিডিয়ায় বিভিন্ন ঐতিহাসিক স্থানের বর্ণনা, বিভিন্ন জনপ্রিয় খাবারের ছবি ও রেটিং দেই, লক্ষ করে দেখবেন প্রতিদিন নানান লেখা ও স্ট্যাটাস এর নিচে এই মূল্যবান তথ্যটি চাপা পড়ে গেছে, তাই প্রয়োজনের সময় খুঝে পাওয়া কঠিন। এই দিক দিয়ে একই কাজ করি আপনি একজন গুগল লোকাল গাইড হয়ে গুগোল ম্যাপে ছবি, লোকেশন, রিভিউ ও রেটিং দিয়ে দিন তাহলে তা গুগোল ম্যাপে যেমন সংরক্ষিত থাকবে তেমনি যে কেও এটা দেখতে পারবে ও পড়তে পারবে। 

উদাহরন সরূপ : ধরুন আপনি একজন দেশী পর্যটক, আপনি ঠিক করলেন দেশের কোন একটি দর্শনীয় স্থানে বেড়াতে যাবেন, এখন প্রশ্ন হচ্ছে দেশে তো অনেক দর্শনীয় স্থান আছে, আপনি কোথায় যাবেন বা সেখানে গিয়ে কোন হোটেলে উঠবেন, কোথায় খাবেন, খাওয়া কেমন হবে, হোটেল এর পরিবেশ কেমন হবে, নিরাপদ কিনা, পরিবার সহ বা নিজে একটা থাকতে চাইলেও শুরুতে এই সব বিষয় গুলো জেনে নেওয়া জরুরী, জায়গাটি দেখতে কেমন, অন্যরা কেমন মতামত দিয়েছে, লোকেশনটা কোন দিকে ইত্যাদি। আর এই কাজটি কাউকে না জিজ্ঞাসা করেও আপনি আপনার স্মার্ট ফোন বা ল্যাপটপ থেকে গুগোল ম্যাপে সার্চ করলেই সহজেই উত্তর গুলো পেয়ে যাচ্ছেন। 

আরও কিছু গুরত্বপূর্ণ টিপস ও লিংক এড করে দিলাম, সহজে বুঝার জন্যঃ

ছবি ও তথ্যঃ ইন্টারনেট ও বাংলাদেশ লোকাল গাইডস পেইজ, নিজ অভিজ্ঞতা, নিউজ


আপনার যে কোন মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ দিতে পারেন। পরবর্তীতে কি বিষয় নিয়ে লেখা চান সেটিও জানাতে পারেন ইমেইলের মাধ্যমে ।

Asive Chowdhury | Facebook | Twitter | LinkedIn | Google Site | Google Local Guides | Google Plus | YouTube

Google Site | Wikipedia | Instagram | Asive’s Blog

Email: ac.papon@gmail.com, Web: www.asive.me